বুধবার   ২১ এপ্রিল ২০২১   বৈশাখ ৭ ১৪২৮   ০৯ রমজান ১৪৪২

কক্সবাজার বার্তা
সর্বশেষ:
৭২ হাজার ৭৫০ কোটি টাকার প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা ‘২০৪১ সালে মাথাপিছু আয় দাঁড়াবে সাড়ে ১২ হাজার ডলার’ রোহিঙ্গা ইস্যুতে প্রধানমন্ত্রীর প্রশংসা করে অ্যাঞ্জেলিনার চিঠি ডিসেম্বরে নির্মাণ শুরু হবে দেশের প্রথম পাতাল মেট্রো রুট গোলদিঘির পাড়ে নির্মিত হচ্ছে আধুনিকমানের মারকাজ মসজিদ ২০২২ সালের মধ্যে ট্রেন চলবে কক্সবাজারে কক্সবাজারের উন্নয়নে উদ্যোগ নিলো জাতিসংঘ দ্বিতীয় পারমানবিক বিদ্যুৎ প্রকল্প মহেশখালী-কুতুবদিয়ায়! এগিয়ে চলছে স্বপ্নের কর্ণফুলী টানেল নির্মাণ কাজ ১০০ হাজার কোটি টাকার উন্নয়ন কাজ চলছে কক্সবাজারে ২৫ মেগা প্রকল্পে পাল্টে যাচ্ছে কক্সবাজার উন্নয়নে শীর্ষে কক্সবাজার
১২৮৯

এসিআই বাম্পার জৈব সারে ভেজাল পেয়েছে টাস্কফোর্স

নিজস্ব প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ২৩ নভেম্বর ২০১৯  

এসিআই কোম্পানীর বাম্পার জৈব সারে ভেজাল পেয়েছে টাস্কফোর্স। সার কারখানা পরিদর্শনে গিয়ে এসিআই ফার্টিলাইজারের বাম্পার জৈব সারে এ ভেজাল পান গাজীপুর জেলার বিভিন্ন রাসায়নিক ও জৈব সার উৎপাদন কারখানা পরিদর্শন করার জন্য গঠিত টাস্কফোর্স। 

৩ সদস্যের গঠিত টাস্কফোর্স এবছর ১৯ এপ্রিল গাজীপুরের শ্রীপুরে তিনটি কারখানা পরিদর্শন করে। পরিদর্শনের সময় সারনিয়ন্ত্রণ আদেশ ১৯৯৫, ১৯৯৯ এবং সার ব্যবস্থাপনা আইন ২০০৬ ও সার ব্যবস্থানা বিধিমালা ২০০৭ অনুযায়ী যে যে আইন ও বিধি বহির্ভূত বিষয়/ কর্মকাণ্ড পরিলক্ষিত হয় সে বিষয়ে গৃহীত ব্যবস্থা ও পরবর্তীতে করণীয় বিষয়ে সুপারিশ করে। 

টাস্কফোর্সের পর্যবেক্ষনে বলা হয়, মাওনার চকপাড়ায় অবস্থিত প্রতিষ্ঠানটি মাজিম এগ্রো প্রতিষ্ঠানের সীমানার ভেতর। মাজিমের গোডাউনে উৎপাদনকারী হিসাবে নিবন্ধনপ্রাপ্ত এসিআই বাম্পার জৈবসার এর ৪০ কেজির ২০টি প্যাকেট পাওয়া যায়। 

মাজিম এগ্রোর সহকারি ম্যানেজার অভিমন্নু ভট্টাচার্য জানান, মাজিম হতে ভাড়াকৃত গোডাউনে শুধু শ্রমিক মজুরীর বিনিময়ে এসিআই ফার্টিলাইজার এর সরবরাহ করা খালি প্যাকেটে মাজিমের কাঁচামাল ও মেশিন ব্যবহার করে উৎপাদিত জৈব সার পূর্ণ করে এসিআই ফার্টিলাইজারকে প্রদান করা হয়।

বিধি বহির্ভূতভাবে সার ব্যবস্থাপনা বিধিমালা ২০০৭ এর বিদি-৪ এর উপবিদি-২ এর জ অনুযায়ী দাখিলকৃত তথ্যাদির সঙ্গে মিল না থাকা  ও তফসিল-২ ফরম-১ অনুযায়ী সার উৎপাদন নিবন্ধনের আবেদনের ৩,৫,৬,৭ এ সঠিক তথ্য না দেওয়ার বিষয়টি টাস্কফোর্সের প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়। 

পরিদর্শনের পর টাস্কফোর্স এসিআই বাম্পার সৈবজসারের ৩টি নমুরা সংগ্রহ করে এসআরডিআই এর কেন্দ্রীয় পরীক্ষাগারে প্রেরণ করে। পরীক্ষারর ফলাফলে আদ্রতার পরিমাণ বেশি পাওয়া যায়। 

সরকারী বিধি মেতাবেক জৈব সারটির আদ্রতার পরিমাণ সঠিক না থাকায় এসিআই ফার্টিলাইজারকে সর্তক করা হয়। একই সঙ্গে সার ব্যবস্থাপনা স্থানের বিষয়ে কৈফিয়ত তলব করে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নিতে কোম্পানীটির বিরুদ্ধে সুপারিশ করে টাস্কফোর্স।

কক্সবাজার বার্তা
কক্সবাজার বার্তা
এই বিভাগের আরো খবর