শুক্রবার   ০৪ ডিসেম্বর ২০২০   অগ্রাহায়ণ ১৯ ১৪২৭   ১৮ রবিউস সানি ১৪৪২

কক্সবাজার বার্তা
সর্বশেষ:
৭২ হাজার ৭৫০ কোটি টাকার প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা ‘২০৪১ সালে মাথাপিছু আয় দাঁড়াবে সাড়ে ১২ হাজার ডলার’ রোহিঙ্গা ইস্যুতে প্রধানমন্ত্রীর প্রশংসা করে অ্যাঞ্জেলিনার চিঠি ডিসেম্বরে নির্মাণ শুরু হবে দেশের প্রথম পাতাল মেট্রো রুট গোলদিঘির পাড়ে নির্মিত হচ্ছে আধুনিকমানের মারকাজ মসজিদ ২০২২ সালের মধ্যে ট্রেন চলবে কক্সবাজারে কক্সবাজারের উন্নয়নে উদ্যোগ নিলো জাতিসংঘ দ্বিতীয় পারমানবিক বিদ্যুৎ প্রকল্প মহেশখালী-কুতুবদিয়ায়! এগিয়ে চলছে স্বপ্নের কর্ণফুলী টানেল নির্মাণ কাজ ১০০ হাজার কোটি টাকার উন্নয়ন কাজ চলছে কক্সবাজারে ২৫ মেগা প্রকল্পে পাল্টে যাচ্ছে কক্সবাজার উন্নয়নে শীর্ষে কক্সবাজার
১৩২

কক্সবাজারে অজগর সাপ ও ময়না পাখি অবমুক্ত

প্রকাশিত: ১৯ অক্টোবর ২০২০  

কক্সবাজার শহরে ও রামু ঈদগড়ে বিরল প্রজাতির অজগর সাপ (পাইথন বিষহীন আদিম সাপ) ও ময়না পাখিসহ বিভিন্ন বন্যপ্রাণী অবমুক্ত করা হয়েছে।

সোমবার (১৯ অক্টোবর) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে কক্সবাজার উত্তর বনবিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা তোহিদুল ইসলামের নির্দেশে বন অধিদপ্তর মাঠের খোলা আকাশে ও রামু ঈদগড় বনাঞ্চল এসব প্রাণী অবমুক্ত করেছেন।

অবমুক্ত করা বন্যপ্রাণীগুলো হলো, একটি অজগর সাপ বা পাইথন। বন্যপ্রাণী ও জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণ কর্মকর্তা বলেন, এটা পৃথিবীর অন্যতম বৃহত্তম সাপ। অজগরকে ময়াল নামেও ডাকা হয়। এরা বিষহীন আদিম সাপ। এদের পিছনের পা-এর চিহ্ন পুরো বিলুপ্ত হয়নি।

এই সাপটি রামু ঈদগড় বনাঞ্চল থেকে লোকালয়ে চলে আসে। রোববার গভীর রাতে বনবিভাগের কর্মকর্তাদের উপস্থিতিতে জনতা ধৃত করে।আজ সোমবার ভোর রাতে পুনরায় বনে অবমুক্ত করে দেওয়া হয় অজরটি।

বন্য প্রাণী অবৈধ ভাবে বিক্রির সময় শিকারী কবল থেকে দুটি ময়না পাখি (খাচাসহ) আটক করে বনবিভাগের বিশেষ টহলদলের অফিসার ইনচার্জ (ওসি) ইমদাদুল হকের নেতৃত্বে টহলদল।

পাখিগুলো সোমবার সকালে কক্সবাজার বন অধিদপ্তর মাঠে খোলা আকাশে অবমুক্ত করা হয়েছে।

এসময় উপস্থিত ছিলেন উত্তর বনবিভাগের বন্যপ্রাণী ও জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণ কর্মকর্তা রাবেয়া আকতার, ঈদগড় রেঞ্জ কর্মকর্তা এনামুল হক, জনপ্রতি নিধি মনিরুজ্জামান মনিরসহ বনকর্মীরা।

বন্যপ্রাণী অবমুক্তকরণ বিষয়ে কক্সবাজার উত্তর বনবিভাগের বিভাগীয় বনকর্মকর্তা মো. তোহিদুল ইসলাম বলেন, জীববৈচিত্র্য, বন ও বন্যপ্রাণী সংরক্ষণ ও নিরাপত্তা বিধানে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ আমরা বরাবরই নিয়ে আসছি।

কক্সবাজার বার্তা
কক্সবাজার বার্তা
এই বিভাগের আরো খবর