শুক্রবার   ০২ অক্টোবর ২০২০   আশ্বিন ১৬ ১৪২৭   ১৩ সফর ১৪৪২

কক্সবাজার বার্তা
সর্বশেষ:
৭২ হাজার ৭৫০ কোটি টাকার প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা ‘২০৪১ সালে মাথাপিছু আয় দাঁড়াবে সাড়ে ১২ হাজার ডলার’ রোহিঙ্গা ইস্যুতে প্রধানমন্ত্রীর প্রশংসা করে অ্যাঞ্জেলিনার চিঠি ডিসেম্বরে নির্মাণ শুরু হবে দেশের প্রথম পাতাল মেট্রো রুট গোলদিঘির পাড়ে নির্মিত হচ্ছে আধুনিকমানের মারকাজ মসজিদ ২০২২ সালের মধ্যে ট্রেন চলবে কক্সবাজারে কক্সবাজারের উন্নয়নে উদ্যোগ নিলো জাতিসংঘ দ্বিতীয় পারমানবিক বিদ্যুৎ প্রকল্প মহেশখালী-কুতুবদিয়ায়! এগিয়ে চলছে স্বপ্নের কর্ণফুলী টানেল নির্মাণ কাজ ১০০ হাজার কোটি টাকার উন্নয়ন কাজ চলছে কক্সবাজারে ২৫ মেগা প্রকল্পে পাল্টে যাচ্ছে কক্সবাজার উন্নয়নে শীর্ষে কক্সবাজার
৭৯

কুতুবদিয়ায় গ্রাম আদালতে নারীর অংশগ্রহণ শীর্ষক কর্মশালা অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত: ৮ সেপ্টেম্বর ২০২০  

কক্সবাজারের কুতুবদিয়া উপজেলায় গ্রাম আদালতের বিচার প্রক্রিয়ায় নারীর অংশগ্রহণ শীর্ষক কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার (৭ সেপ্টেম্বর) উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে বাংলাদেশ লিগ্যাল এইড এন্ড সার্ভিসেস ট্রাষ্ট (ব্লাস্ট) সার্বিক সহযোগিতায় উপজেলা সম্মেলন কক্ষে দিনব্যাপী কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

দিনব্যাপী কর্মশালায় উপজেলার ৬ ইউনিয়ন পরিষদের মহিলা মেম্বার ও নারী নেত্রীরা অংশ নেন।

কর্মশালার উদ্বোধন ও সভাপতিত্ব করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এ.এম জহিরুল হায়াত। এতে উপস্থিত ছিলেন ডিস্ট্রিক্ট ফ্যাসিলেটর অখ্যং মারমা, বাংলাদেশ লিগ্যাল এইড এন্ড সার্ভিসেস ট্রাষ্টের কক্সবাজার জেলা সমন্বয়কারী অলক কুমার রায়,কুতুবদিয়া উপজেলা সমন্বয়কারী টিটু বড়ুয়া,লেমশীখালী ইউনিয়ন পরিষদের গ্রাম আদালত সহকারী সাইফুউদ্দিন ছিদ্দিকী মানিক।

কর্মশালায় ইউএনও এ.এম জহিরুল হায়াত বলেন, সরকার জাতীয় সংসদ থেকে আইন পাশ করে দেশের সকল ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচিত চেয়ারম্যান ও সদস্যদের বিচারিক ক্ষমতা প্রদান করেছেন। গ্রাম আদালতের এজলাসে উচ্চ পদস্থ অন্য কোন কর্মকর্তা চাইলেই বিচারকের আসনে বসতে পারবেন না। ভেবে দেখুন যে, সরকার আপনাদের কত উচ্চ মর্যাদায় আসীন করেছেন। এ মর্যাদা অক্ষুন্ন রাখতে হলে অবশ্যই ইউনিয়নের গ্রাম আদালতকে নারীদের সক্রিয় করতে হবে। এর মাধ্যমে ন্যায়সঙ্গত ভাবে এলাকার ছোট-খাট বিরোধ নিষ্পত্তিতে বিশেষ ভূমিকা রাখতে হবে। গ্রাম আদালত সরকারের একটি মহতি উদ্যোগ। ইহাকে সক্রিয় করতে পারলে উচ্চ আদালতে মামলার চাপ কমে যাবে। পাশাপাশি সাধারণ মানুষকে সচেতন করা যাতে তারা কখনো বিরোধে জড়িত হলে ইউনিয়ন পরিষদের গ্রাম আদালতে আসে এবং বিচার চাইতে পারে।

কক্সবাজার বার্তা
কক্সবাজার বার্তা
এই বিভাগের আরো খবর