শুক্রবার   ০৪ ডিসেম্বর ২০২০   অগ্রাহায়ণ ১৯ ১৪২৭   ১৭ রবিউস সানি ১৪৪২

কক্সবাজার বার্তা
সর্বশেষ:
৭২ হাজার ৭৫০ কোটি টাকার প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা ‘২০৪১ সালে মাথাপিছু আয় দাঁড়াবে সাড়ে ১২ হাজার ডলার’ রোহিঙ্গা ইস্যুতে প্রধানমন্ত্রীর প্রশংসা করে অ্যাঞ্জেলিনার চিঠি ডিসেম্বরে নির্মাণ শুরু হবে দেশের প্রথম পাতাল মেট্রো রুট গোলদিঘির পাড়ে নির্মিত হচ্ছে আধুনিকমানের মারকাজ মসজিদ ২০২২ সালের মধ্যে ট্রেন চলবে কক্সবাজারে কক্সবাজারের উন্নয়নে উদ্যোগ নিলো জাতিসংঘ দ্বিতীয় পারমানবিক বিদ্যুৎ প্রকল্প মহেশখালী-কুতুবদিয়ায়! এগিয়ে চলছে স্বপ্নের কর্ণফুলী টানেল নির্মাণ কাজ ১০০ হাজার কোটি টাকার উন্নয়ন কাজ চলছে কক্সবাজারে ২৫ মেগা প্রকল্পে পাল্টে যাচ্ছে কক্সবাজার উন্নয়নে শীর্ষে কক্সবাজার
৯৬

চকরিয়ার মসজিদের উন্নয়ন কাজে অর্থ সহায়তা দিচ্ছে মেয়র আলমগীর

প্রকাশিত: ২৪ অক্টোবর ২০২০  

চকরিয়া পৌরসভার ৯নং ওয়ার্ডে পূর্ব নিজপানখালী পুরাতন কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের উন্নয়ন কাজের জন্য ব্যক্তিগত তহবিল থেকে দুই লাখ টাকা অনুদান দিয়েছেন চকরিয়া পৌরসভার মেয়র আলমগীর চৌধুরী। শুক্রবার জুমার নামাজ শেষে মসজিদ কমিটির হাতে অনুদানের নগদ দুই লাখ টাকা তুলে দেন  মেয়র আলমগীর চৌধুরী।

ওইসময় ৯নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর নজরুল ইসলাম, চকরিয়া পৌরসভা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি আমান উল্লাহ আমান, মসজিদ কমিটির সভাপতি সম্পাদক, ছাত্রলীগ নেতা বুলেট ফারুক ছাড়াও সমবেত মুসল্লী এবং সুধীজন উপস্থিত ছিলেন।

মেয়রের সহকারি শেফায়েত হোসেন ওয়ারেসি বলেন, মন্ত্রনালয় থেকে বরাদ্দ প্রাপ্তি সাপেক্ষে চকরিয়া পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ডের ৯০টি জামে মসজিদের উন্নয়নে প্রয়োজনীয় অর্থ সহায়তা দিচ্ছেন মেয়র আলমগীর চৌধুরী। ইতোমধ্যে পৌরসভার বেশিরভাগ এলাকার মসজিদে সরকারি অনুদানের বরাদ্দ বিতরণ করেছেন। এখনো অব্যাহত রয়েছে বিতরণ কর্মসুচি।

অপরদিকে সরকারি অনুদানের পাশাপাশি ব্যক্তিগত তহবিল থেকেও মসজিদের উন্নয়নে সাধ্যমতো সহায়তা দিচ্ছেন মেয়র আলমগীর চৌধুরী। সর্বশেষ শুক্রবার চকরিয়া পৌরসভার পূর্ব নিজপানখালী পুরাতন কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের উন্নয়ন কাজের জন্য ব্যক্তিগত তহবিল থেকে ২ লাখ টাকা অনুদান দিয়েছেন তিনি।

চকরিয়া পৌরসভার মেয়র ও উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সম্পাদক আলমগীর চৌধুরী বলেন, চকরিয়া পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ডে প্রায় ৯০টি জামে মসজিদ রয়েছে। ইতোমধ্যে গেল কয়েকবছরে পৌরসভার প্রতিটি মসজিদের উন্নয়নে মন্ত্রনালয় থেকে বরাদ্দ প্রাপ্তি সাপেক্ষে অনুদানের অর্থ বিতরণ করা হয়েছে। যেসব মসজিদে এখনো বিতরণ হয়নি, পর্যায়ক্রমে সকল মসজিদে সরকারি অনুদান নিশ্চিত করা হবে। পাশাপাশি পৌরসভা এলাকার প্রতিটি মন্দির ও গীর্জার উন্নয়নে সহায়তা বিতরণ করা হয়েছে। স্কুল মাদরাসার উন্নয়নেও অর্থ সহায়তা নিশ্চিত করা হচ্ছে।

মেয়র আরও বলেন, সরকারি বরাদ্দের পাশাপাশি আমার ব্যক্তিগত তহবিল থেকেও পৌরসভার বিভিন্ন ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান অনুদান দিচ্ছি। সর্বশেষ শুক্রবার চকরিয়া পৌরসভার পূর্ব নিজপানখালী পুরাতন কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের উন্নয়ন কাজের জন্য ব্যক্তিগত তহবিল থেকে ২ লাখ টাকা অনুদান দিয়েছি। প্রতিটি শুক্রবার পৌরসভার বিভিন্ন ওয়ার্ডের একেকটি মসজিদে জুমার নামায আদায় করছি। একই সঙ্গে মসজিদের উন্নয়ন ও যাবতীয় সমস্যা নিরসনে ব্যবস্থা নিচ্ছি।

কক্সবাজার বার্তা
কক্সবাজার বার্তা
এই বিভাগের আরো খবর