শনিবার   ১৬ জানুয়ারি ২০২১   মাঘ ২ ১৪২৭   ০২ জমাদিউস সানি ১৪৪২

কক্সবাজার বার্তা
সর্বশেষ:
৭২ হাজার ৭৫০ কোটি টাকার প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা ‘২০৪১ সালে মাথাপিছু আয় দাঁড়াবে সাড়ে ১২ হাজার ডলার’ রোহিঙ্গা ইস্যুতে প্রধানমন্ত্রীর প্রশংসা করে অ্যাঞ্জেলিনার চিঠি ডিসেম্বরে নির্মাণ শুরু হবে দেশের প্রথম পাতাল মেট্রো রুট গোলদিঘির পাড়ে নির্মিত হচ্ছে আধুনিকমানের মারকাজ মসজিদ ২০২২ সালের মধ্যে ট্রেন চলবে কক্সবাজারে কক্সবাজারের উন্নয়নে উদ্যোগ নিলো জাতিসংঘ দ্বিতীয় পারমানবিক বিদ্যুৎ প্রকল্প মহেশখালী-কুতুবদিয়ায়! এগিয়ে চলছে স্বপ্নের কর্ণফুলী টানেল নির্মাণ কাজ ১০০ হাজার কোটি টাকার উন্নয়ন কাজ চলছে কক্সবাজারে ২৫ মেগা প্রকল্পে পাল্টে যাচ্ছে কক্সবাজার উন্নয়নে শীর্ষে কক্সবাজার
৬৭

জন্ম নিবন্ধন সনদ নিয়ে প্রতিবন্ধীর বাসায় সদর ইউএনও সুরাইয়া

প্রকাশিত: ১৪ জানুয়ারি ২০২১  

কক্সবাজারের সর্বত্রই চলছে জন্ম নিবন্ধন সনদের জন্য হাহাকার। প্রতিটি ইউনিয়ন পরিষদ, পৌরসভায় জন্ম নিবন্ধন সনদের জন্য প্রতিদিন ভিড় করছে শত শত নারী-পুরুষ। ঠিক সেই মুহূর্তে ব্যতিক্রমধর্মী একটি খবর হলো কক্সবাজার সদরের পোকখালী ইউনিয়নে ২ জন প্রতিনব্ধীর জন্য জন্ম নিবন্ধন সনদ নিয়ে স্বয়ং সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা প্রতিবন্ধীর বাসায় উপস্থিত হয় জন্ম নিবন্ধন সনদ প্রদান করে মানবিকতার অনন্য নজির স্থাপন করলেন।

প্রতিবন্ধীর পরিবারের জন্য ঘর নির্মাণ করে দেয়ার আশ্বাস ও দেন কক্সবাজার সদরের ইউএনও সুরাইয়া আক্তার। গতকাল বিকাল ৪ টায় তিনি একই পরিবােেরর ২ জন প্রতিবন্ধীর হাতে এ জন্ম নিবন্ধন সনদ তুলে দেন।

পোকখালী ইউনিয়ন পরিষদের সচিব নুরুল কাদের জানান পুর্ব পোকখালীর গুরা মিয়া তার ২ সন্তানকে হেফজখানায় ভর্তির জন্য জন্ম নিবন্ধনের আবেদন করে পরিষদে। তিনি জানান তার পাঁচ সন্তানের মধ্যে চারজন দৃষ্টি প্রতিবন্ধী। বিষয়টি আমাকে ভাবিয়ে তোলে। আমি আবেদন জমা নিয়ে তার বাসায় গিয়ে ঘটনার সত্যতা পাই। পরে বিষয়টি ইউএনও মহোদয়কে জানালে তিনি সরেজমিনে সেখানে যান।

সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সুরাইয়া আক্তার জানান, জন্ম নিবন্ধনের আবেদনকারী ২ জনই দৃষ্টি প্রতিবন্ধী শুনে আমার আগ্রহ জাগল তাছাড়া নিবন্ধন পাওয়া তো তাদের নাগরিক অধিকার। আমি তাদের বাড়িতে গিয়ে দেখি ৫ জনের মধ্যে ৪ জনই জন্ম থেকে দৃষ্টি প্রতিবন্ধী।

আমি তাদের আবেদনকারী রহমত উলাহ(৭) এবং  মিতফা(৪) হাতে জন্ম নিবন্ধন সনদ তুলে দিই। এছাড়া মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর দেয়া ২ টি কম্বল ও হাইজেনিক কিট প্রদান করি। আর্থিক অবস্থা বিবেচনায় তাদের জন্য একটি ঘর করে দেয়ার ইচ্ছা আছে। তাদের আবেদন করতে বলেছি বরাদ্দ আসলেই তাদের বাড়ি করে দেয়ার চেষ্টা করব। যেহেতু পরিবারটি খুবই অসহায়, তাদের প্রতি নজর থাকবে। এ সময় সাথে ছিলেন পোকখালীর ইউপি চেয়ারম্যান রফিক আহমেদ, সদর ইউএনও অফিস সহকারী উত্তম দে।

প্রতিবন্ধীদের মা জান্নাতুল বকেয়া জানান, আল্লাহর কাছে হাজার শোকর। বড় স্যারেরা আমার বাড়িতে এসে আমাদের ঘর করে দেবেন বলেছেন। আমি আমার সন্তানদের জন্য সকলের সহযোগিতা কামনা করছি।

কক্সবাজার বার্তা
কক্সবাজার বার্তা
এই বিভাগের আরো খবর