বুধবার   ২৮ অক্টোবর ২০২০   কার্তিক ১৩ ১৪২৭   ১১ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

কক্সবাজার বার্তা
সর্বশেষ:
৭২ হাজার ৭৫০ কোটি টাকার প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা ‘২০৪১ সালে মাথাপিছু আয় দাঁড়াবে সাড়ে ১২ হাজার ডলার’ রোহিঙ্গা ইস্যুতে প্রধানমন্ত্রীর প্রশংসা করে অ্যাঞ্জেলিনার চিঠি ডিসেম্বরে নির্মাণ শুরু হবে দেশের প্রথম পাতাল মেট্রো রুট গোলদিঘির পাড়ে নির্মিত হচ্ছে আধুনিকমানের মারকাজ মসজিদ ২০২২ সালের মধ্যে ট্রেন চলবে কক্সবাজারে কক্সবাজারের উন্নয়নে উদ্যোগ নিলো জাতিসংঘ দ্বিতীয় পারমানবিক বিদ্যুৎ প্রকল্প মহেশখালী-কুতুবদিয়ায়! এগিয়ে চলছে স্বপ্নের কর্ণফুলী টানেল নির্মাণ কাজ ১০০ হাজার কোটি টাকার উন্নয়ন কাজ চলছে কক্সবাজারে ২৫ মেগা প্রকল্পে পাল্টে যাচ্ছে কক্সবাজার উন্নয়নে শীর্ষে কক্সবাজার
৬৩২

জেলা বিএনপির ৩ শীর্ষ নেতার সাথে বকুলের শারিরীক সম্পর্ক

ডেস্ক নিউজ

প্রকাশিত: ২৮ ডিসেম্বর ২০১৮  

জেলা মহিলা দলের সভানেত্রী নাসিমা আকতার বকুলের সাথে ঘনিষ্ঠ শারিরীক সম্পর্ক ছিল বর্তমানে ভারতের শিলংয়ে অবস্থান করা সাবেক যোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী ও বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য সালাহ উদ্দিন আহমেদ, বিএনপির কেন্দ্রীয় মৎস্যজীবী বিষয়ক সম্পাদক, কক্সবাজার-৩ আসনের সাবেক সাংসদ লুৎফুর রহমান কাজল ও জেলা বিএনপির সভাপতি শাহজাহান চৌধুরীর। বর্তমানে সালাহ উদ্দিন আহমেদের সাথে মেলামেশা না হলেও নিজ দলের অপর দুই নেতা লুৎফুর রহান কাজল ও শাহজান চৌধুরীর সাথে তিনি ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক বজায় রেখেছেন সুন্দরী এ নারী। এখনও তারা রাতে একে অপরের শয্যাসঙ্গী হন। 

জেলা পর্যায়ে বিএনপির এ তিন শীর্ষ নেতার সাথে ঘনিষ্ঠ সম্পর্কের করনে বিএনপির রাজনীতিতে আকস্মিক উত্থান হয়েছে বকুলের। ‘উড়ে এসে জুড়ে বসার মতোই’ তিনি অল্প সময়ের মধ্যে দলের গুরত্বপূর্ণ পদ ভাগিয়ে নিয়েছেন। জেলা বিএনপির রাজনীতিতে বিচরণ করেন দাপটের সাথে।তিনি এখন কক্সবাজার পৌরসভার নির্বাচিত কাউন্সিলর। এর আগে তিনি সদর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেছেন। শীর্ষ নেতাদের সাথে ঘনিষ্ঠতার কারনে তিনি নির্বাচনী প্রচারনায় দলের আনুকুল্য পেয়ে আসছেন। দু:শ্চরিত্রের কারনে তার সংসার বেশিদিন টিকে না। পোশাকের মতই তিনি স্বামী বদলান। এ নিয়ে চারবার বিয়ে পিঁড়িতে বসেছেন তিনি। সর্বশেষ গাঁটছড়া বেধেছেন অনেকটা পিতার বয়সী এক জনের সাথে। এ নিয়ে নানা মুখরোচক আলোচনা রয়েছে বিএনপি পাড়ায়। অনেকে বলেন, জেলা বিএনপির শীর্ষ নেতাদের মনোরঞ্জনের মাধ্যমেই বকুলের আজকের রাজনৈতিক ক্যারিয়ার তৈরী হয়েছে। যতদিন রুপ-লাবণ্য আছে তিনি নেতাদের মনোরঞ্জন করে যাবেন। জেলা বিএনপির নেতারা তার সানিধ্য পেতে মরিয়া হয়ে থাকেন। ঘর এবং বাইরে দু’টো দিক অনায়াসে সামাল দেওয়ার জন্যই তিনি চতুর্থ স্বামী হিসেবে বয়স্ক এক জনকে বিয়ে করেছেন। 

ঘরে স্বামী থাকলেও তাঁর অধিকাংশ কাটে বাইরে। দিনের বেলায় তিনি বিভিন্ন স্থানে গিয়ে জেলার নেতাদের মনোরঞ্জন করেন। অনৈতিক সম্পর্কের মাধ্যমে তিনি লাইট হাউস এলাকায় একটি ছোটখাটো সন্ত্রাসী বহিনীও নিয়ন্ত্রন করেন। যারা নিয়মিত হোটেল-মোটেল জোন থেকে চাঁদা তুলে। পরে সেই চাঁদার বড় একটি অংশ তুলে দেওয়া হয় বকুলের হাতে। তার ছোট ভাই শাহদাত হোসেন ওরফে মুন্না ওরফে মুনিয়া কক্সবাজার সমুদ্র সৈকত কেন্দ্রিক ছিনতাইকারী চক্রের গ্যাং লিডার। তার বিরুদ্ধে ছিনতাই, চাঁদাবাজি, ডাকাতি ও হত্য প্রচেষ্টার অভিযোগে থানায় ডজনখানে মামলা রয়েছে। 
২০১৪ সালে অনুষ্ঠিত টি-২০ বিশ্বকাপের আগে কক্সবাজারে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামের নির্মান কাজ বন্ধ করে দেওয়ার হুমকি দিয়ে আলোচনায় আসেন বিএনপি নেত্রী নাছিমা আকতার বকুল। ওই সময় দলের শীর্ষ নেতাদের সাথে বৈঠক করে টি-টুয়েন্টি বিশ^কাপ না হওয়ার জন্য ষড়যন্ত্র করার  অভিযোগ উঠে তার বিরুদ্ধে।

কক্সবাজার বার্তা
কক্সবাজার বার্তা
এই বিভাগের আরো খবর