শুক্রবার   ৩০ অক্টোবর ২০২০   কার্তিক ১৪ ১৪২৭   ১৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

কক্সবাজার বার্তা
সর্বশেষ:
৭২ হাজার ৭৫০ কোটি টাকার প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা ‘২০৪১ সালে মাথাপিছু আয় দাঁড়াবে সাড়ে ১২ হাজার ডলার’ রোহিঙ্গা ইস্যুতে প্রধানমন্ত্রীর প্রশংসা করে অ্যাঞ্জেলিনার চিঠি ডিসেম্বরে নির্মাণ শুরু হবে দেশের প্রথম পাতাল মেট্রো রুট গোলদিঘির পাড়ে নির্মিত হচ্ছে আধুনিকমানের মারকাজ মসজিদ ২০২২ সালের মধ্যে ট্রেন চলবে কক্সবাজারে কক্সবাজারের উন্নয়নে উদ্যোগ নিলো জাতিসংঘ দ্বিতীয় পারমানবিক বিদ্যুৎ প্রকল্প মহেশখালী-কুতুবদিয়ায়! এগিয়ে চলছে স্বপ্নের কর্ণফুলী টানেল নির্মাণ কাজ ১০০ হাজার কোটি টাকার উন্নয়ন কাজ চলছে কক্সবাজারে ২৫ মেগা প্রকল্পে পাল্টে যাচ্ছে কক্সবাজার উন্নয়নে শীর্ষে কক্সবাজার
৯৯

নতুন আঙ্গিকে যাত্রা হচ্ছে কক্সবাজার পুলিশের

প্রকাশিত: ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০  

অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান হত্যাকা-ের পর ইমেজ সংকটে পড়া পুরো কক্সবাজার জেলা পুলিশকে ঢেলে সাজানো হচ্ছে। এর পর নতুন আঙ্গিকে যাত্রা শুরু করতে যাচ্ছে পর্যটন জেলা কক্সবাজার পুলিশ। এরই অংশ হিসেবে শুক্রবার নতুন করে কক্সবাজারের ৮টি থানাসহ বিভিন্ন পর্যায়ে দায়িত্বে থাকা ১৩৯ এসআই, ৯২ জন এএসআই, ১ হাজার ৫৫ জন নায়েক ও কনস্টেবলকে বিভিন্ন রেঞ্জে বদলি করা হয়েছে। এ নিয়ে শুক্রবার পর্যন্ত কক্সবাজার জেলা থেকে বদলির সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১ হাজার ৩৪৭ জনে।

পুলিশ সূত্র জানায়, বদলি হওয়া শূন্যপদ পূরণে শুক্রবার চট্টগ্রাম রেঞ্জ ডিআইজি কার্যালয়ে যোগ দিয়েছেন ৫৩ পুলিশ পরিদর্শক, ৮৫ এসআই-এএসআই ও ৭৩৪ জন কনস্টেবল। তাদের কক্সবাজার জেলায় পদায়ন করা হচ্ছে।

গত ১৬ সেপ্টেম্বর কক্সবাজারের পুলিশ সুপার (এসপি) এবিএম মাসুদ হোসেনকে রাজশাহীর পুলিশ সুপার হিসেবে বদলি করা হয়। ঝিনাইদহের এসপি হাসানুজ্জামানকে কক্সবাজার জেলা পুলিশের দায়িত্ব দেওয়া হয়। নবাগত এসপি বুধবার দায়িত্বভার গ্রহণ করেন। বৃহস্পতিবার এসপি মাসুদ হোসেন কক্সবাজার থেকে বিদায় নেন। গত ২১ সেপ্টেম্বর বদলি করা হয় অতিরিক্ত পুলিশ সুপারসহ অপর ৭ শীর্ষ কর্মকর্তাকে। কক্সবাজারের নবাগত

পুলিশ সুপার হাসানুজ্জামান জানান, এটি নিয়মিত বদলির অংশ। কক্সবাজার জেলার পুরোটা পুলিশে পরিবর্তন করা হচ্ছে। পর্যায়ক্রমে বদলি হওয়া সদস্য ছাড়পত্র নেবে এবং নিয়োগকৃতরা যোগদান করবেন।

সূত্র বলেছে, যেসব পুলিশ সদস্যকে কক্সবাজার জেলা থেকে পুলিশের অন্য ইউনিটে বদলি করা হয়েছে, তাদের একটি বড় অংশই ঘুরেফিরে কক্সবাজার জেলার বিভিন্ন থানা, ফাঁড়ি, তদন্তকেন্দ্র, গোয়েন্দা পুলিশসহ বিভিন্ন শাখায় কর্মরত ছিলেন। দীর্ঘদিন একই জায়গায় থাকায় তাদের কেউ কেউ নানা ধরনের বিভাগীয় শৃঙ্খলা পরিপন্থী কর্মকা-ে জড়িয়ে পড়েছিলেন বলে অভিযোগ রয়েছে। দীর্ঘদিন একই জায়গায় থাকায় ইয়াবাকারবারিসহ বিভিন্ন ধরনের অপরাধীচক্রের সঙ্গে তাদের সখ্য গড়ে উঠেছিল। যে কারণে এ সম্পর্কের সুতা কেটে দিতেই পুলিশ সদর দপ্তর কক্সবাজার জেলা থেকে সব পুলিশকে বদলির সিদ্ধান্ত নেয়, যেন নতুন আঙ্গিকে জেলা পুলিশকে ঢেলে সাজিয়ে ইয়াবাবিরোধী বিশেষ অভিযান নতুনরূপে শুরু করা যায়।

সূত্র জানিয়েছে, ২০১৮ সালে দেশে মাদকবিরোধী যে বিশেষ অভিযান শুরু হয়েছিল, তার সূচনা করে র‌্যাব। তখন পুলিশের বর্তমান আইজিপি ড. বেনজীর আহমেদ র‌্যাবের মহাপরিচালকের দায়িত্বে ছিলেন। ওই সময় র‌্যাবও কক্সবাজার জেলায় ইয়াবাবিরোধী বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে। র‌্যাবের হাতে ধরাশায়ী হয় বেশকিছু বড় ইয়াবাকারবারি। যে কারণে কক্সবাজারের ওপর বর্তমান আইজিপি বিশেষ নজর দিয়েছেন। ঢেলে সাজানোর পরই শুরু হবে ইয়াবাবিরোধী বিশেষ অভিযান। এ অভিযানকালে কোনো পুলিশ সদস্য অনৈতিক কর্মকা-ে জড়ালে তার পরিণতি কী হতে পারে এ ব্যাপারে বিশেষ ব্রিফ দেওয়া হচ্ছে কক্সবাজারে যোগ দেওয়া নতুন পুলিশ সদস্যকে।

কক্সবাজার বার্তা
কক্সবাজার বার্তা
এই বিভাগের আরো খবর