সোমবার   ০৮ মার্চ ২০২১   ফাল্গুন ২৩ ১৪২৭   ২৪ রজব ১৪৪২

কক্সবাজার বার্তা
সর্বশেষ:
৭২ হাজার ৭৫০ কোটি টাকার প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা ‘২০৪১ সালে মাথাপিছু আয় দাঁড়াবে সাড়ে ১২ হাজার ডলার’ রোহিঙ্গা ইস্যুতে প্রধানমন্ত্রীর প্রশংসা করে অ্যাঞ্জেলিনার চিঠি ডিসেম্বরে নির্মাণ শুরু হবে দেশের প্রথম পাতাল মেট্রো রুট গোলদিঘির পাড়ে নির্মিত হচ্ছে আধুনিকমানের মারকাজ মসজিদ ২০২২ সালের মধ্যে ট্রেন চলবে কক্সবাজারে কক্সবাজারের উন্নয়নে উদ্যোগ নিলো জাতিসংঘ দ্বিতীয় পারমানবিক বিদ্যুৎ প্রকল্প মহেশখালী-কুতুবদিয়ায়! এগিয়ে চলছে স্বপ্নের কর্ণফুলী টানেল নির্মাণ কাজ ১০০ হাজার কোটি টাকার উন্নয়ন কাজ চলছে কক্সবাজারে ২৫ মেগা প্রকল্পে পাল্টে যাচ্ছে কক্সবাজার উন্নয়নে শীর্ষে কক্সবাজার
১৮৫

পশ্চিমাদের কাছ থেকে কপটতাপূর্ণ বক্তব্য চাই না: জয়

প্রকাশিত: ১১ জানুয়ারি ২০২১  

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছেলে ও তাঁর তথ্যপ্রযুক্তিবিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয় বলেছেন, ‘যুক্তরাষ্ট্র ও পশ্চিমা দেশগুলোর কাছ থেকে ভবিষ্যতে বাংলাদেশের বাক্‌স্বাধীনতার বিষয়ে কপটতাপূর্ণ বক্তব্য চাই না।’ তিনি বলেছেন, তিনি চান তাঁর এই বক্তব্য ঢাকায় যুক্তরাষ্ট্রের দূতাবাস ও পশ্চিমা দূতাবাসগুলো নোট করে রাখুক।
সজীব ওয়াজেদ আজ শনিবার সকালে তাঁর ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে এক পোস্টে এ কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রীর তথ্যপ্রযুক্তিবিষয়ক উপদেষ্টা জয় বলেন, টুইটার ও অন্যান্য সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে স্থায়ীভাবে নিষিদ্ধ করেছে। পাশাপাশি আরও কয়েকজন ব্যক্তি ও সংস্থার ক্ষেত্রেও একই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। কারণ হিসেবে বলা হয়েছে, এঁরা সহিংসতা ছড়িয়ে দিচ্ছেন, এমন সব গুজব সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে করছেন। জয় একে যুক্তরাষ্ট্রের বাক্‌স্বাধীনতার সীমা বলে উল্লেখ করেন।

ফেসবুক পেজে আজ এই পোস্ট দেন সজীব ওয়াজেদ জয়

বাংলাদেশের ডিজিটাল সিকিউরিটি আইন সম্পর্কে যাঁরা অভিযোগ করেন, তাঁদের উদ্দেশে সজীব ওয়াজেদ বলেন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে সরকার এ ধরনের নিষেধাজ্ঞা দিতে বেসরকারি সংস্থাগুলোকে নির্দেশনা দেয়। তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশে আমরা বিশ্বাস করি, এটি বেসরকারি সংস্থাগুলোর করা উচিত নয়, সিদ্ধান্ত আদালতের মাধ্যমে হওয়া উচিত।’

তথ্যপ্রযুক্তি উপদেষ্টা বলেন, ‘প্রত্যেকেরই বাক্‌স্বাধীনতার অধিকার আছে, তবে আপনি যখন অন্যকে আঘাত করেন, এমন মিথ্যাচার প্রচার করেন, তখন সেই স্বাধীনতা খর্ব হয়ে যায়। কারও ক্ষতি করার অধিকার কারও নেই।

কক্সবাজার বার্তা
কক্সবাজার বার্তা
এই বিভাগের আরো খবর