মঙ্গলবার   ২৭ অক্টোবর ২০২০   কার্তিক ১২ ১৪২৭   ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

কক্সবাজার বার্তা
সর্বশেষ:
৭২ হাজার ৭৫০ কোটি টাকার প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা ‘২০৪১ সালে মাথাপিছু আয় দাঁড়াবে সাড়ে ১২ হাজার ডলার’ রোহিঙ্গা ইস্যুতে প্রধানমন্ত্রীর প্রশংসা করে অ্যাঞ্জেলিনার চিঠি ডিসেম্বরে নির্মাণ শুরু হবে দেশের প্রথম পাতাল মেট্রো রুট গোলদিঘির পাড়ে নির্মিত হচ্ছে আধুনিকমানের মারকাজ মসজিদ ২০২২ সালের মধ্যে ট্রেন চলবে কক্সবাজারে কক্সবাজারের উন্নয়নে উদ্যোগ নিলো জাতিসংঘ দ্বিতীয় পারমানবিক বিদ্যুৎ প্রকল্প মহেশখালী-কুতুবদিয়ায়! এগিয়ে চলছে স্বপ্নের কর্ণফুলী টানেল নির্মাণ কাজ ১০০ হাজার কোটি টাকার উন্নয়ন কাজ চলছে কক্সবাজারে ২৫ মেগা প্রকল্পে পাল্টে যাচ্ছে কক্সবাজার উন্নয়নে শীর্ষে কক্সবাজার
১৩৩

পেকুয়ায় wfp ও sarpv’র অর্থ সহায়তা প্রদান

প্রকাশিত: ২৫ জুলাই ২০২০  

পেকুয়া উপজেলার পেকুয়া সদর, উজানটিয়া, টৈটং ও চকরিয়ার হারবাংয়ে বিশ্বখাদ্য কর্মসূচী (ডাব্লিউএফপি)অর্থায়নে খাদ্য সহায়তার অংশ হিসাবে বেসরকারী সংস্থা এসএআরপিভি কর্তৃক দেওয়া দ্বিতীয় দফায় বৃহস্পতিবার দুপুরে নগদ অর্থ বিতরণ করা হয়েছে। কক্সবাজার-১ (চকরিয়া পেকুয়া)’র এমপি জাফর আলম বিএ (অনার্স) এমএ’র সার্বিক সহযোগিতায় এই খাদ্য সহায়তা কর্মসূচী বাস্তবায়ন করা হচ্ছে।

পেকুয়া সদরে নগদ অর্থ সহায়তা বিতরণের সময় সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে পেকুয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহসভাপতি সাংবাদিক জহিরুল ইসলাম বলেন; প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যতদিন থাকবেন ততোদিন এদেশে কেউ না খেয়ে থাকার কোন আশংকা নেই। যে কোন সংকট ও দুর্যোগ মোকাবেলায় সরকার বদ্ধপরিকর। এই করোনাকালেও চকরিয়া পেকুয়ায় শেখ হাসিনার প্রতিনিধি এমপি জাফর আলম বিএ(অনার্স) এমএ কর্মহীন মানুষের ঘরে ঘরে খাদ্য সহায়তা পৌঁছে দিচ্ছেন। তিনি বলেন, চকরিয়া পেকুয়ার এমপি জাফর আলম বিএ(অনার্স)এমএ’র প্রচেষ্টা ও সহযোগিতায় ডাব্লিউএফপি চকরিয়ার এসএআরপিভি’র মধ্যে এই দুই উপজেলা কোটি কোটি টাকার খাদ্য সহায়তা প্রদান করছেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনায় ডাব্লিউএফপি অর্থায়নে স্থানীয় জনগোষ্ঠীর জন্য স্থানীয় সরকারকে সম্পৃক্ত করে সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে সুষ্টুভাবে এ কর্মসূচীটি বাস্তবায়ন করছে চকরিয়ার বেসরকারী সংস্থা এসএআরপিভি (সোসাল এ্যাসিস্ট্যান্স এন্ড রিহ্যাবিলিটেশন ফর দি ফিজিক্যালি ভালনারেবল)। করোনাকালে কর্মহীন হয়ে যাওয়া পরিবারের মধ্যে পেকুয়া উপজেলার ৭ ইউনিয়নে ৫হাজার ৫শত হত দরিদ্র পরিবারের মাঝে দ্বিতীয় দফায় ২ কোটি ৪৭ লাখ ৫০ হাজার টাকার এই নগদ অর্থ বিতরণ কার্যক্রম ২১ জুলাই থেকে শুরু হয়ে ২৩ জুলাই শেষ হয়েছে। চকরিয়ায় ১২ জুলাই থেকে দ্বিতীয় দফায় নগদ অর্থ বিতরণের কার্যক্রম এখনও চলছে। বৃহস্পতিবার পেকুয়া উপজেলার পেকুয়া সদর, উজানটিয়া ও টৈটং ইউনিয়নে এ নগদ অর্থ বিতরণের সময় উপস্থিত ছিলেন এসএআরপিভি’র ত্রাণ সমন্বয়ক ইয়াসমিন সুলতানা, উপস্থিত ছিলেন পেকুয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহসভাপতি সাংবাদিক জহিরুল ইসলাম, আওয়ামীলীগ নেতা খলিলুর রহমান, মোস্তাক আহমদ, মৌলভী আক্তার হোসেন, ওসমান, রাসেল, শহীদুল ইসলাম, মো কাইছার, জনপ্রতিনিধি ও স্থানীয় নেতৃবৃন্দ। এদিন চকরিয়ার হারবাংয়েও এই নগদ অর্থ সহায়তা বিতরণ করা হয়। এ সময় এসএআরপিভি’ র আঞ্চলিক পরিচালক কাজী মাকসুদুল আলম মুহিত উপস্থিত ছিলেন। এসএআরপিভি’র চট্টগ্রামের আঞ্চলিক পরিচালক কাজী মাকসুদুল আলম মুহিত জানান; এ কর্মসুচীর আওতায় করোনা সংকটে ক্ষতিগ্রস্ত অসহায় নিম্ন আয়ের চকরিয়া উপজেলার সাড়ে ১৬ হাজার পরিবারকে এ খাদ্য সহায়তার অংশ হিসাবে দ্বিতীয় দফায় ৪ হাজার ৫শত টাকা নগদ অর্থ বিতরণ করা হয়েছে। এ কর্মসূচীর আওতায় এসেছে পেকুয়ার ৭ ইউনিয়ন, চকরিয়া উপজেলার ১টি পৌরসভা ও ১৮ ইউনিয়নের ১৬ হাজার ৫শত পরিবার।

এ কর্মসূচীতে গত মাসে প্রথম দফায় চকরিয়ার ১৬ হাজার ৫শত পরিবারের মাঝে বিতরণ করা হয়েছে ৩০ কেজি ভাল মানের চাল, ৫ কেজি হাই এনার্জি বিস্কুট। প্রথম দফায় ওই একই সময়ে পেকুয়ায় ৭ ইউনিয়নে ৫ হাজার ৫শত পরিবারের মাঝে ৩০ কেজি করে চাল দেওয়া হয়েছে। নগদ অর্থ বিতরণের এই কর্মসূচী পেকুয়া উপজেলায় ২১ জুলাই থেকে শুরু হয়ে আজ বৃহস্পতিবার ২৩ জুলাই শেষ হয়েছে। চকরিয়া ও পেকুয়ায় আগামী মাসে ওই ২২ হাজার উপকারভোগী পরিবারের মাঝে আবারও ৩০ কেজি করে চাল বিতরণ করা হবে বলে সংশ্লিষ্ট সুত্র জানিয়েছে। গত ১২ জুলাই থেকে চকরিয়া উপজেলায় ১৮ইউনিয়ন ও ১টি পৌরসভায় মোট ৭ কোটি ৪২লাখ ৫০হাজার টাকার নগদ অর্থ বিতরণ শুরু হয়ে ২৩ জুলাই শেষ হয়েছে।

কক্সবাজার বার্তা
কক্সবাজার বার্তা
এই বিভাগের আরো খবর