বুধবার   ২১ অক্টোবর ২০২০   কার্তিক ৫ ১৪২৭   ০৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

কক্সবাজার বার্তা
সর্বশেষ:
৭২ হাজার ৭৫০ কোটি টাকার প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা ‘২০৪১ সালে মাথাপিছু আয় দাঁড়াবে সাড়ে ১২ হাজার ডলার’ রোহিঙ্গা ইস্যুতে প্রধানমন্ত্রীর প্রশংসা করে অ্যাঞ্জেলিনার চিঠি ডিসেম্বরে নির্মাণ শুরু হবে দেশের প্রথম পাতাল মেট্রো রুট গোলদিঘির পাড়ে নির্মিত হচ্ছে আধুনিকমানের মারকাজ মসজিদ ২০২২ সালের মধ্যে ট্রেন চলবে কক্সবাজারে কক্সবাজারের উন্নয়নে উদ্যোগ নিলো জাতিসংঘ দ্বিতীয় পারমানবিক বিদ্যুৎ প্রকল্প মহেশখালী-কুতুবদিয়ায়! এগিয়ে চলছে স্বপ্নের কর্ণফুলী টানেল নির্মাণ কাজ ১০০ হাজার কোটি টাকার উন্নয়ন কাজ চলছে কক্সবাজারে ২৫ মেগা প্রকল্পে পাল্টে যাচ্ছে কক্সবাজার উন্নয়নে শীর্ষে কক্সবাজার
১২৫৯

বাবরি মসজিদের স্থানে রাম মন্দির নির্মাণ চান বাবরের বংশধর

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রকাশিত: ১৯ আগস্ট ২০১৯  

ভারতের উত্তরপ্রদেশের অযোদ্ধায় ভেঙে ফেলা বাবরি মসজিদের স্থানে বিতর্কিত রাম মন্দির নির্মাণের দাবি জানিয়েছেন মুঘল সম্রাট বাহাদুর শাহ জাফরের বংশধর প্রিন্স হাবিউদ্দীন টুসি। বাবরি মসজিদের স্থানে রাম মন্দিরের নির্মাণ কাজে স্বর্ণের একটি ইটও দান করতে চান তিনি। 

শুধু তাই নয়, রামের জন্মভূমি এবং বাবরি মসজিদের স্থানের মালিকানা তার হাতে হস্তান্তর করারও দাবি জানিয়েছেন টুসি। তিনি বলেছেন, প্রথম মুঘল সম্রাট বাবর ১৫২৯ সালে বাবরি মসজিদ নির্মাণ করেছিলেন। সম্রাট বাবরের বংশধর হিসেবে এই জমির ন্যায্য মালিকানার অধিকার একমাত্র তারই।

রোববার টুসি বলেন, সুপ্রিম কোর্ট যদি এই জমির মালিকানা তার হাতে ন্যাস্ত করেন, তাহলে পুরো জমিই তিনি রাম মন্দির নির্মাণের জন্য দান করবেন। বাবরি মসজিদ যেখানে তৈরি করা হয়েছিল, সেখানে আগে রাম মন্দির ছিল বলে তিনি বিশ্বাস করেন। একই সঙ্গে হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের ভাবাবেগকে তিনি শ্রদ্ধা করেন বলে জানিয়েছেন। 

১৯৯২ সালের ৬ ডিসেম্বর ভারতের উগ্রপন্থী হিন্দুত্ববাদী কর সেবকরা হামলা চালিয়ে ঐতিহাসিক এই মসজিদ ধ্বংস করে। বাবরি মসজিদ-সংক্রান্ত একটি মামলা দেশটির সুপ্রিম কোর্টে দীর্ঘদিন ধরে ঝুলে রয়েছে। মামলায় লড়তে ৫০ বছর বয়সী এই প্রিন্স সম্প্রতি পিটিশন দাখিল করেছেন। শুনানির অপেক্ষায় আছে তার সেই পিটিশন।

টুসির যুক্তি, মামলার কোনো পক্ষই তাদের দাবির পক্ষে প্রমাণ দেখাতে পারেননি। কিন্তু মুঘল সাম্রাজ্যের একজন বংশধর হিসেবে ওই জমির মালিকানা পাওয়ার অধিকার তার রয়েছে। রাম মন্দির নির্মাণের জন্য পুরো জমি দান করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে জানিয়েছেন তিনি।

সূত্র : এনডিটিভি।

কক্সবাজার বার্তা
কক্সবাজার বার্তা
এই বিভাগের আরো খবর