বুধবার   ০২ ডিসেম্বর ২০২০   অগ্রাহায়ণ ১৭ ১৪২৭   ১৬ রবিউস সানি ১৪৪২

কক্সবাজার বার্তা
সর্বশেষ:
৭২ হাজার ৭৫০ কোটি টাকার প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা ‘২০৪১ সালে মাথাপিছু আয় দাঁড়াবে সাড়ে ১২ হাজার ডলার’ রোহিঙ্গা ইস্যুতে প্রধানমন্ত্রীর প্রশংসা করে অ্যাঞ্জেলিনার চিঠি ডিসেম্বরে নির্মাণ শুরু হবে দেশের প্রথম পাতাল মেট্রো রুট গোলদিঘির পাড়ে নির্মিত হচ্ছে আধুনিকমানের মারকাজ মসজিদ ২০২২ সালের মধ্যে ট্রেন চলবে কক্সবাজারে কক্সবাজারের উন্নয়নে উদ্যোগ নিলো জাতিসংঘ দ্বিতীয় পারমানবিক বিদ্যুৎ প্রকল্প মহেশখালী-কুতুবদিয়ায়! এগিয়ে চলছে স্বপ্নের কর্ণফুলী টানেল নির্মাণ কাজ ১০০ হাজার কোটি টাকার উন্নয়ন কাজ চলছে কক্সবাজারে ২৫ মেগা প্রকল্পে পাল্টে যাচ্ছে কক্সবাজার উন্নয়নে শীর্ষে কক্সবাজার
৭৫

বিদেশফেরতদের করোনা সনদ বাধ্যতামূলক

প্রকাশিত: ১৭ নভেম্বর ২০২০  

স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রী জাহিদ মালেক জানিয়েছেন, বিদেশফেরত যাত্রীদের জন্য কোভিড-১৯ নেগেটিভ সনদ আবার বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। নেগেটিভ সনদ দেখাতে না পারলে ১৪ দিন বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে। রোববার রাজধানীর কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে ১০০ ভেন্টিলেটর হস্তান্তর অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন। যুক্তরাষ্ট্র সরকার করোনাভাইরাস মোকাবিলায় বাংলাদেশকে অত্যাধুনিক প্রযুক্তির এই ভেন্টিলেটর দিয়েছে।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, বিভিন্ন দেশে সংক্রমণ আবার বাড়ছে, এর মধ্যেই বিদেশ থেকে মানুষ আসছে, অনেকে বাইরে যাচ্ছে। ভাইরাসের বিস্তার রোধেই করোনাভাইরাস পরীক্ষার সনদ বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। বিমানবন্দর, স্থলবন্দর বা সমুদ্রবন্দর যে পথেই দেশে আসুক। সব জায়গায় এই নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। সব জায়গায় কোয়ারেন্টাইনেরও ব্যবস্থা করা হয়েছে।

অনুমোদনবিহীন কোনো হাসপাতাল, ডায়াগনোস্টিক সেন্টার ও ক্লিনিকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে জানিয়ে জাহিদ মালেক বলেন, প্রয়োজনে সেগুলো বন্ধ করে দেওয়া হবে। যাদের অনুমোদন আছে অথচ প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতি নেই তাদের বিরুদ্ধেই ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তবু মানুষের জীবন নিয়ে ছিনিমিনি খেলতে দেব না। এ জন্য সিভিল সার্জন ও স্বাস্থ্য অধিদফতরের পরিচালকদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

বাংলাদেশে করোনা পরিস্থিতি তুলনামূলক ভালো দাবি করে তিনি বলেন, মৃত্যু হার অনেক কম। তবে সংক্রমণের হার কমেনি। মাঝেমধ্যে সংক্রমণের হার বাড়ছে। সুস্থতার হার বেড়েছে। সংক্রমণ কমানোর জন্য আমরা বেশ কিছু পদক্ষেপ নিয়েছি। সব মন্ত্রণালয়ে চিঠি দেওয়া হয়েছে। সরকারি প্রতিষ্ঠানের সেবা পেতে হলে মাস্ক পরে আসতে হবে। নো মাস্ক, নো সার্ভিস।

এর আগে স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. এবিএম খুরশীদ আলম সাংবাদিকদের জানান, অবৈধ হাসপাতাল-ক্লিনিকের পূর্ণাঙ্গ তালিকা তৈরি হচ্ছে, তা শেষ হলে সবার সামনে প্রকাশ করা হবে। ১০ দিন আগে সব জেলার সিভিল সার্জনদের সঙ্গে স্বাস্থ্য অধিদফতরের একটি বৈঠক হয়েছে। তাদের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছিল হাসপাতালের তালিকা পাঠাতে। এর মধ্যে বেশিরভাগ জায়গা থেকে আমরা তথ্য পেয়ে গেছি।

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো. মহিবুর রহমানের সভাপতিত্বে ১০০ ভেন্টিলেটর হস্তান্তর অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত আর্ল আর মিলার, স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল বাশার মোহাম্মদ খুরশীদ আলম, কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল জামিল আহমেদ প্রমুখ।

কক্সবাজার বার্তা
কক্সবাজার বার্তা
এই বিভাগের আরো খবর