সোমবার   ৩০ নভেম্বর ২০২০   অগ্রাহায়ণ ১৫ ১৪২৭   ১৪ রবিউস সানি ১৪৪২

কক্সবাজার বার্তা
সর্বশেষ:
৭২ হাজার ৭৫০ কোটি টাকার প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা ‘২০৪১ সালে মাথাপিছু আয় দাঁড়াবে সাড়ে ১২ হাজার ডলার’ রোহিঙ্গা ইস্যুতে প্রধানমন্ত্রীর প্রশংসা করে অ্যাঞ্জেলিনার চিঠি ডিসেম্বরে নির্মাণ শুরু হবে দেশের প্রথম পাতাল মেট্রো রুট গোলদিঘির পাড়ে নির্মিত হচ্ছে আধুনিকমানের মারকাজ মসজিদ ২০২২ সালের মধ্যে ট্রেন চলবে কক্সবাজারে কক্সবাজারের উন্নয়নে উদ্যোগ নিলো জাতিসংঘ দ্বিতীয় পারমানবিক বিদ্যুৎ প্রকল্প মহেশখালী-কুতুবদিয়ায়! এগিয়ে চলছে স্বপ্নের কর্ণফুলী টানেল নির্মাণ কাজ ১০০ হাজার কোটি টাকার উন্নয়ন কাজ চলছে কক্সবাজারে ২৫ মেগা প্রকল্পে পাল্টে যাচ্ছে কক্সবাজার উন্নয়নে শীর্ষে কক্সবাজার
১২০

বিশুদ্ধ উচ্চারণে সালাম প্রদান করা খাঁটি মুসলিমের পরিচয়

প্রকাশিত: ২৮ অক্টোবর ২০২০  

নবী সহধর্মিণী ‘আয়িশাহ (রাঃ) হতে বর্ণিত। তিনি বলেন, ইয়াহূদীদের একটি দল নাবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর কাছে এসে (সালাম শব্দ বিকৃত করে) বলল, ‘আসসামু আলাইকুম’ তোমার উপর মৃত্যু উপনীত হোক। ‘আয়িশাহ (রাঃ) বলেন, আমি এর অর্থ বুঝলাম এবং বললাম, ‘ওয়ালাইকুমুস সামু অললা’নাতু’ তোমাদের উপরও মৃত্যু ও লা’নত। ‘আয়িশাহ (রাঃ) বলেন, তখন রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বললেনঃ থাম, হে ‘আয়িশাহ! আল্লাহ যাবতীয় কার্যে নম্রতা পছন্দ করেন। আমি বললাম, হে আল্লাহর রাসূল! আপনি কি শোনেননি, তারা কী বলেছে? রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বললেন, আমি তো বলেছি ‘ওয়ালাইকুম’ অর্থাৎ তোমাদের কামনা তোমাদের উপর উপনীত হোক (এবং এতটুকুই যথেষ্ট )। (বোখারী – ৬০২৪)

শব্দ বিকৃত করা ইহুদী জাতির চিরাচরিত অভ্যাস। তারা আল্লাহর কিতাব তাওরীত পরিবর্তন ও বিকৃত করে ফেলেছে। এই অভ্যাস তাদের মাঝে এখনও অব্যাহত আছে ।

অশুদ্ধ কথা বলা, অশুদ্ধ কাজ করা এবং অশুদ্ধের চর্চা করা এগুলো সর্বস্বীকৃত নিন্দনীয় কাজ ও মূর্খতার পরিচায়ক। বিশেষ করে কেউ যখন উদ্দেশ্যে প্রণোদিত হয়ে অশুদ্ধের চর্চা করে ও অশুদ্ধের পক্ষে সাফাই বাক্য প্রসব করে তখন তা হয়ে যায় অত্যন্ত ঘৃণিত।

‘সালাম’ ইসলামের একটি গুরুত্বপূর্ণ সুন্নত ও ইসলামের মহান নিদর্শন। পরস্পরের মাঝে ভ্রাতৃত্ব ও বন্ধুত্ব সৃষ্টি করার অপূর্ব সুন্দর একটি মাধ্যম হলো ‘সালাম’।

হযরত আবু হুরায়রা(রা:) থেকে বর্ণিত,
তিনি বলেন রাসুল (সা:) বলেছেন, ’তোমরা ওই সময় পর্যন্ত জান্নাতে প্রবেশ করতে পারবেনা,যে পর্যন্ত পরিপূর্ণ ঈমানের অধিকারী না হবে এবং একজন অপরজনকে ভালো না বাসবে । আমি কি তোমাদেরকে এমন ভালোবাসার কথা বলে দেবনা; যার ওপর আমল করলে তোমাদের মধ্যে ভালোবাসা সৃষ্টি হবে ? তা হচ্ছে তোমরা ব্যাপকভাবে তোমাদের মাঝে সালামের প্রচার প্রসার করবে, । (সহীহ মুসলিম ৫৪)

মদিনা গমনের পর নবীজি (সঃ) মদীনাবাসীর উদ্যেশ্যে সর্বপ্রথম যে কথাগুলো বলেছিলেন তা হলো, ‘হে মানব সকল! তোমরা সালামের প্রসার ঘটাও, ক্ষুধার্থ কে খাবার দান করো, আত্মীয়তার সম্পর্ক বজায় রাখো এবং গভীর রাতে (তাহাজ্জুদের) সালাত আদায় করো যখন মানুষ ঘুমন্ত থাকে; তবে তোমরা নিরাপদে জান্নাত লাভ করবে। (ইবনে মাজা – ৩২৫১)

সালামের পূর্ণ বাক্য হলো, “আস্ সালামু আলাইকুম ওয়ারাহমাতুল্লাহি ওয়াবারাকাতুহ্” যার অর্থ হলো তোমার উপর আল্লাহর পক্ষ থেকে শান্তি, রহমত ও বরকত উপনীত হোক । আমাদেরকে অবশ্যই বিশুদ্ধ উচ্চারণে সালাম প্রদান করতে হবে। সালাম বিকৃত করা কিংবা অশুদ্ধ উচ্চারণে সালাম প্রদান করা শরীয়তের নিদর্শন বিকৃত করা ও এর প্রতি অসম্মান প্রদর্শন করার শামিল। তাছাড়া “সালাম” আল্লাহর একটি গুণবাচক নাম । সুতরাং, এর বিকৃতি আল্লাহর নামের অবমাননার শামিল । একজন মুসলমান শুদ্ধ উচ্চারণে সালাম প্রদান করবে এটাই তাঁর খাঁটি মুসলমানিত্বের পরিচয়।

বর্তমান সময়ে আমরা সালামকে বিভিন্ন রূপে বিকৃত করে ফেলেছি যেমন, আসসা মালাইকুম, সেলামালিকুম, শ্লামালিকুম, আস্সালামালিকুম, আস্লামালিকুম, সালামালিকুম ইত্যাদি। এগুলো সব সালামের বিকৃত রূপ; কিন্তু দুঃখজনক হলেও সত্য যে এই বিকৃত রূপগুলো-ই আজ প্রকৃত হতে চলেছে সমাজে এবং ইসলাম বিদ্বেষীরা এক্ষেত্রে চালিয়ে যাচ্ছে সুক্ষ প্রচেষ্টা । এজন্য আমরাই দায়ী । আল্লাহ আমাদেরকে ক্ষমা করুন।

লেখক:-
(মুফতি দেলোয়ার হোসাইন)
মুফতি ও সিনিয়র শিক্ষক, আজিজুল উলুম মাদ্রাসা, রাজারকুল।
খতীব, মসজিদে সুফিয়া, উত্তর তারাবনিয়ার ছরা, কক্সবাজার।

কক্সবাজার বার্তা
কক্সবাজার বার্তা