বুধবার   ২৮ অক্টোবর ২০২০   কার্তিক ১৩ ১৪২৭   ১১ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

কক্সবাজার বার্তা
সর্বশেষ:
৭২ হাজার ৭৫০ কোটি টাকার প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা ‘২০৪১ সালে মাথাপিছু আয় দাঁড়াবে সাড়ে ১২ হাজার ডলার’ রোহিঙ্গা ইস্যুতে প্রধানমন্ত্রীর প্রশংসা করে অ্যাঞ্জেলিনার চিঠি ডিসেম্বরে নির্মাণ শুরু হবে দেশের প্রথম পাতাল মেট্রো রুট গোলদিঘির পাড়ে নির্মিত হচ্ছে আধুনিকমানের মারকাজ মসজিদ ২০২২ সালের মধ্যে ট্রেন চলবে কক্সবাজারে কক্সবাজারের উন্নয়নে উদ্যোগ নিলো জাতিসংঘ দ্বিতীয় পারমানবিক বিদ্যুৎ প্রকল্প মহেশখালী-কুতুবদিয়ায়! এগিয়ে চলছে স্বপ্নের কর্ণফুলী টানেল নির্মাণ কাজ ১০০ হাজার কোটি টাকার উন্নয়ন কাজ চলছে কক্সবাজারে ২৫ মেগা প্রকল্পে পাল্টে যাচ্ছে কক্সবাজার উন্নয়নে শীর্ষে কক্সবাজার
৯৪

মহেশখালীতে সড়ক সংস্কার হওয়ায় আনন্দিত এলাকাবাসী

প্রকাশিত: ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০  

স্বপ্নের ‘সিঙ্গাপুর খ্যাত’ সড়কটি যেন গলার কাঁটা! হয়েছে অনেকদিন ধরে। কক্সবাজারের দ্বীপ উপজেলা মহেশখালীর মাতারবাড়িতে হচ্ছে বিশ্বের বৃহৎ কয়লা বিদ্যুৎ কেন্দ্র ।

‘স্বপ্নের সিঙ্গাপুর’ খ্যাত এই প্রকল্প ঘিরে চলছে হাজার কোটি টাকার উন্নয়ন কাজ। যার দিকে চেয়ে আছে সরকার। মহেশখালী উপজেলার ৩৫ কিলোমিটার উত্তর পশ্চিমে মাতারবাড়ি। যেখানে প্রায় ৮০ হাজার মানুষের বসতি। একটু দক্ষিণে ধলঘাটা। যেখানকার ৩০ হাজার মতো মানুষের দুঃখের গল্প সবার জানা। এই দুই ইউনিয়নের লাখের বেশি মানুষের পাশাপাশি কয়লা বিদ্যুৎ প্রকল্পে নিয়োজিতদের চলাচল চালিয়াতলি-মাতারবাড়ি সড়ক। অথচ, কয়লা বিদ্যুৎ প্রকল্পের জন্য বিকল্প কোনো সড়ক তৈরি করা হয়নি। ছোট বড় সবধরনের যানবাহন গ্রামীণ সড়ক দিয়েই চলেছে। যে কারণে দীর্ঘ দিনের সড়কের বেহাল দশা হলেও অর্ধ কিলোমিটার সড়কে ফিরে পেয়েছে পূর্ণরূপ। ফলে উচ্ছ্বাসিত মাতারবাড়ীর বাসিন্দারা এছাড়া বিভিন্ন যানবাহন দুর্ঘটনার কবলে পড়ে অনেক যাত্রীও আহত হয়েছেন ।

এনিয়ে মাতারবাড়ী সহ পুরো মহেশখালীতে এ ভাঙ্গা সড়কের ছবি সংযুক্ত করে সংবাদ মাধ্যমে ও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে বিভিন্ন সমালোচনার ঝড় উঠে । চলতি বর্ষার শুরু থেকে এ ভাঙ্গা সড়ক দিয়ে যাতায়াতে সীমাহীন দুর্ভোগে রয়েছে মাতারবাড়ীবাসি।

জানাগেছে,স্থানিয়দের অভিযোগের তীর চেয়ারম্যানের দিকে হলেও মুলত এই সড়কটি এলজিইডি’র অধীনে হওয়ায় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানরাও উক্ত সড়কে কাজ করার কোন সুযোগ ছিল না । একারনে দীর্ঘ দিন যাবত মাতারবাড়ীর সংযোগ সড়কটি আঁধা কিলোমিটার পর্যন্ত গর্তের সৃষ্টি হলেও সংস্কারের ক্ষেত্রে স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ অসহায়ত্বের ভূমিকায় ছিল ।

অবশেষে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মাষ্টার মোহাম্মদ উল্লাহ’র সংশ্লিষ্টদের বিষয়টি অবহিত করলে তিনি স্থানিয় জনপ্রতিনিধির হওয়ার সুবাদে তার প্রচেষ্টা এবং তার আবেদনের প্রেক্ষিতে স্থানিয় সংসদ সদস্য আলহাজ্ব আশেক উল্লাহ রফিকের নির্দেশে এবং উপজেলা প্রকৌশলীর তত্ত্বাবধানে মাতারবাড়ীর ভাঙ্গা সড়কটি একাংশে অর্ধকিলোমিটার প্রাথমিক ভাবে সংস্কার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে ।

গত বুধবার দুপুর থেকে মাতারবাড়ীর ইউপি চেয়ারম্যান মাষ্টার মোহাম্মদ উল্লাহর উদ্যোগে বর্তমানে সড়কটিতে সংস্কার কাজ শুরু হলে ১৯ সেপ্টেস্বর শনিবার পর্যন্ত কাজ চলমান থাকতে দেখা গেছে ।

অপরদিকে উক্ত সড়ক দিয়ে সিএনজি গাড়ী চালক ফারুক নামে এক যুবক জানিয়েছেন সড়ক সংস্কার করায় গাড়ী ভালভাবে চলছে। তবে পুরো সড়কটি সংস্কারের দাবি তুলেছেন তিনি। এছাড়াও উক্ত সড়কের মাতারবাড়ী ব্রীজের পূর্বপাশে বড় বড় গর্ত গুলি সংস্কার করা হলেও একটি অসাধু চক্র বিষয়টি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভিন্নভাবে উপস্থাপন করায় স্থানিয় সচেতন বাসিন্দাদের মাঝে ক্ষোভের ধানা বেঁধেছে। অনেকে মনে করছেন সমলোচকদের শুভ বুদ্ধির উদয় হয়ে বাকি সড়কটি সংস্কারের জন্য প্রচার-প্রচারে অংশিদার হবে।

কক্সবাজার বার্তা
কক্সবাজার বার্তা
এই বিভাগের আরো খবর