শনিবার   ৩১ অক্টোবর ২০২০   কার্তিক ১৬ ১৪২৭   ১৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

কক্সবাজার বার্তা
সর্বশেষ:
৭২ হাজার ৭৫০ কোটি টাকার প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা ‘২০৪১ সালে মাথাপিছু আয় দাঁড়াবে সাড়ে ১২ হাজার ডলার’ রোহিঙ্গা ইস্যুতে প্রধানমন্ত্রীর প্রশংসা করে অ্যাঞ্জেলিনার চিঠি ডিসেম্বরে নির্মাণ শুরু হবে দেশের প্রথম পাতাল মেট্রো রুট গোলদিঘির পাড়ে নির্মিত হচ্ছে আধুনিকমানের মারকাজ মসজিদ ২০২২ সালের মধ্যে ট্রেন চলবে কক্সবাজারে কক্সবাজারের উন্নয়নে উদ্যোগ নিলো জাতিসংঘ দ্বিতীয় পারমানবিক বিদ্যুৎ প্রকল্প মহেশখালী-কুতুবদিয়ায়! এগিয়ে চলছে স্বপ্নের কর্ণফুলী টানেল নির্মাণ কাজ ১০০ হাজার কোটি টাকার উন্নয়ন কাজ চলছে কক্সবাজারে ২৫ মেগা প্রকল্পে পাল্টে যাচ্ছে কক্সবাজার উন্নয়নে শীর্ষে কক্সবাজার
৬৫

মহেশখালীতে ৫৮ হাজার শিশুকে খাওয়ানো হবে ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল

প্রকাশিত: ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০  

আগামী ৪ থেকে ১৭ অক্টোবর জাতীয় ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইনের মাধ্যমে এই কর্মসূচী উদযাপন করবে মহেশখালী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স।

মঙ্গলবার (২৯ সেপ্টেম্বর) সকাল সাড়ে ১১ টায় মহেশখালী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে অনুষ্ঠিত জাতীয় ভিটামিন ‘এ’ ক্যাম্পেইন অভিহিতকরণ সভায় এ তথ্য জানানো হয়।

মহেশখালী উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা মাহাফুজুল হকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ অভিহিতকরণ সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতা করেন, মহেশখালী থানার নবাগত ওসি আবদুল হায় ।

অভিহিতকরণ সভায় আরও জানানো হয়, ভিটামিন ‘এ’ শুধুমাত্র অপুষ্টিজনিত অন্ধত্ব থেকে শিশুদের রক্ষা করে তাই নয়, ভিটামিন ‘এ’ শিশুর রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে। ডায়রিয়ার ব্যাপ্তিকাল ও জটিলতা কমায় এবং শিশু মৃত্যুর ঝুঁকি কমায়। রাতকানা, দীর্ঘমেয়াদি ডায়রিয়ার, হাম ও মারাত্মক অপুষ্টিতে আক্রান্ত শিশুকে ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়াতে হবে। বছরে দুইবার জাতীয় ভিটামিন ‘এ’ ক্যাম্পেইন আয়োজন করা হয়। ৬ মাস থেকে ১ বছরের কম বয়সের ৬ হাজার ৯৮৮ জন শিশুকে একটি করে নীল রঙের এবং ১ বছর থেকে ৫ বছর বয়সের ৫০ হাজার ৯শ ৩ জন শিশুকে একটি করে লাল রঙের ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে। মাইক্রোপ্লেনের মাধ্যমে এই ক্যাম্পেইনের সক্ষমতা নির্ধারণ করা হয়েছে। কোন শিশুকেই এই ক্যাম্পেইনের বাইরে রাখা যাবে না।

প্রধান অতিথি ওসি আবদুল হায় বক্তৃতায় বলেন, শিশুর দেহে স্বাভাবিক বৃদ্ধি, রাতকানা রোগ থেকে রক্ষা ও শিশুর রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধিতে ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল প্রয়োজন। আমাদের প্রজন্মকে উজ্জ্বল ভবিষ্যৎ প্রদানে, প্রত্যককে নিজ নিজ অবস্থান থেকে ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন বাস্তবায়নে কাজ করতে হবে। ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন যথার্থ ও সার্বিকভাবে আয়োজনে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি, মসজিদের ইমাম, পুরোহিত, শিক্ষক, সাংবাদিকদের দ্বায়িত্ববান হয়ে প্রচারণায় কাজ করতে হবে।

স্বাস্থ্য বিভাগের সকলকে, স্বাস্থ্যবিধি মেনে সুরক্ষার মাধ্যমে শিশুদের নিয়ে মা-বাবাকে ইপিআই কেন্দ্রে এসে শিশুকে ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়াতে অনুরোধ জানান তিনি।

অভিহিতকরণ সভায় আরও বক্তৃতা করেন, মহেশখালী উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার আবু নোমান মো: আবদুল্লাহ, ডা: এস এম আশারাফুজ জামান, শান্তনুঘোষ, মহেশখালী প্রেসক্লাবের সভাপতি মাহ্বুব রোকন, সাংবাদিক আবুল বশর পারভেজ, এম বশির উল্লাহ, তারেক আজিজ , ইসলামিক ফাউন্ডেশন মহেশখালী উপজেলা সুপারভাইজার মীর কাসেম , এমটিইপিআই নুরুল আলম হেলালী, স্বাস্থ্য পরির্দশক ইনর্চাজ মোজাম্মেল হক, পৌরসভার প্রতিনিধি মোবিনুল হক ।

মহেশখালী উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মাহ্ফাুজুল হক বলেন, মহেশখালীতে স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করতে আমরা প্রস্তুুত। সরকার গুণগত মান নিয়ন্ত্রণ করে ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন গ্রহণ করেছে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন পরিচালনা করা হবে। স্বাস্থ্যকর্মীরা মাক্স পরিহিত থাকবেন, কেন্দ্রে সাবান পানি দিয়ে হাত ধোয়ার ব্যবস্থা থাকবে। কমপক্ষে ৩ ফুট দূরত্বে ইপিআই কেন্দ্রে, কমিউনিটি ক্লিনিকসহ অন্যান্য স্বাস্থ্যসেবা কেন্দ্রে শিশুদের ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে। আমাদের প্রত্যেকের দায়িত্ব রয়েছে সচেতন ভাবে সকল শিশুকে ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়ানো নিশ্চিত করা। মুখে মাক্স পরিধান করে, শিশুকে নিকটস্থ কেন্দ্রে নিয়ে গিয়ে, শারীরিক দূরত্ব বজায় রেখে ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়ানোর অনুরোধ জানান তিনি।

কক্সবাজার বার্তা
কক্সবাজার বার্তা
এই বিভাগের আরো খবর