শনিবার   ০৫ ডিসেম্বর ২০২০   অগ্রাহায়ণ ২১ ১৪২৭   ১৯ রবিউস সানি ১৪৪২

কক্সবাজার বার্তা
সর্বশেষ:
৭২ হাজার ৭৫০ কোটি টাকার প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা ‘২০৪১ সালে মাথাপিছু আয় দাঁড়াবে সাড়ে ১২ হাজার ডলার’ রোহিঙ্গা ইস্যুতে প্রধানমন্ত্রীর প্রশংসা করে অ্যাঞ্জেলিনার চিঠি ডিসেম্বরে নির্মাণ শুরু হবে দেশের প্রথম পাতাল মেট্রো রুট গোলদিঘির পাড়ে নির্মিত হচ্ছে আধুনিকমানের মারকাজ মসজিদ ২০২২ সালের মধ্যে ট্রেন চলবে কক্সবাজারে কক্সবাজারের উন্নয়নে উদ্যোগ নিলো জাতিসংঘ দ্বিতীয় পারমানবিক বিদ্যুৎ প্রকল্প মহেশখালী-কুতুবদিয়ায়! এগিয়ে চলছে স্বপ্নের কর্ণফুলী টানেল নির্মাণ কাজ ১০০ হাজার কোটি টাকার উন্নয়ন কাজ চলছে কক্সবাজারে ২৫ মেগা প্রকল্পে পাল্টে যাচ্ছে কক্সবাজার উন্নয়নে শীর্ষে কক্সবাজার
৫১৬

যে ভাবনা থেকে নির্বাচনে মাশরাফি

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ৫ ডিসেম্বর ২০১৮  

সংবাদ সম্মেলন তিনি অনেক বারই করেছেন। বা অনেক সংবাদ সম্মেলনে মাশরাফি বিন মুর্তজাই থেকেছেন সবচেয়ে বড় মুখ। তবে মঙ্গলবার মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় স্টেডিয়ামে যে সংবাদ সম্মেলনে কথা বললেন বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের ওয়ানডে অধিনায়ক সেটি একটু অন্য রকম। যে সংবাদ সম্মেলনে কেন নির্বাচনে এসেছেন তার নানা ব্যাখ্যা দিলেন টাইগার অধিনায়ক।

৯ ডিসেম্বর শুরু হতে যাচ্ছে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ। মাশরাফির নেতৃত্বেই খেলবে বাংলাদেশ। কিন্তু ৩০ ডিসেম্বর জাতীয় নির্বাচন। যেখানে অংশ নিতে যাচ্ছেন মাশরাফি। খেলার মধ্যে তাই নির্বাচন এসে যাচ্ছে বারবার। মাশরাফি নিজেকে সংযত রাখছেন। সিরিজ শেষ করেই তিনি নির্বাচনি প্রচারণায় অংশ নেবেন এবং সে নিয়ে কথা বলবেন।

কিন্ত প্রতিটি পদক্ষেপেই যে তাকে নির্বাচন নিয়ে প্রশ্ন শুনতে হয়। বিশেষ করে সংবাদ মাধ্যমের। ওয়ানডে সিরিজ চলাকালে যেন আর সেই প্রশ্ন শুনতে না হয়, তাই সোমবার ভিন্ন ধরনের সংবাদ সম্মেলনে কথা বললেন টাইগার অধিনায়ক। যেখানে তিনি ব্যাখ্যা দিলেন নির্বাচনে কেন অংশ নিতে যাচ্ছেন তিনি।

এদিন মাশরাফি ব্যাখ্যা দিলেন এভাবে, ‘প্রথমত যদি ওয়ার্ল্ড কাপ পর্যন্ত ধরেন, আমি যেটা চিন্তা করেছি, আর সাত থেকে আট মাস বাকি আছে। বিশ্বকাপের পর আমার ক্যারিয়ার যদি শেষ হয়, পরবর্তী সাড়ে চার বছরে কি হবে আমি জানি না। আর আমার একটা সুযোগ আসছে, যেটা আমি উপভোগ করি সবসময়, মানুষের সেবা করা। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী একটা সুযোগ দিয়েছেন। আপনারা জানেন যে আমার একটা ফাউন্ডেশন আছে, আমার এলাকার জন্য কিছু কাজ করার। আমার মনে হয় এটা আমার জন্য অনেক বড় সুযোগ, তাদের জন্য কাজ করার।’

মাশরাফি যোগ করে বলেন, ‘শুধু এখান থেকেই মনে হয়েছে। সাড়ে সাত-আট মাস পর তো আবার জাতীয় নির্বাচন হবে না।’

বিশ্বকাপ থেকে অবসরের পর খেলোয়াড় মাশরাফিকে মানুষ মনে নাও রাখতে পারে। কিন্তু রাজনীতির মাধ্যমে মানুষের মধ্যে থাকার ভাবনা কাজ করেছে মাশরাফির, ‘আমার ক্যারিয়ার অবশ্যই শেষের দিকে। না আমি শচীন টেন্ডুলকার, না আমি ম্যাকগ্রা যে আমার কথা মানুষ স্মরণ রাখবে। আমি আমার মতো করেই ক্রিকেটটা খেলেছি। আমার সংগ্রামী জীবনে যতোটুক পেরেছি খেলেছি। তবে আমি সবসময় উপভোগ করেছি মানুষের জন্য কাজ করতে পারা। এটা আমার ছোটবেলার শখ ছিল বলতে পারেন। যেই সুযোগটা আমি বললাম, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দিয়েছেন।’

কক্সবাজার বার্তা
কক্সবাজার বার্তা
এই বিভাগের আরো খবর