শনিবার   ০৮ আগস্ট ২০২০   শ্রাবণ ২৩ ১৪২৭   ১৮ জ্বিলহজ্জ ১৪৪১

কক্সবাজার বার্তা
সর্বশেষ:
৭২ হাজার ৭৫০ কোটি টাকার প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা ‘২০৪১ সালে মাথাপিছু আয় দাঁড়াবে সাড়ে ১২ হাজার ডলার’ রোহিঙ্গা ইস্যুতে প্রধানমন্ত্রীর প্রশংসা করে অ্যাঞ্জেলিনার চিঠি ডিসেম্বরে নির্মাণ শুরু হবে দেশের প্রথম পাতাল মেট্রো রুট গোলদিঘির পাড়ে নির্মিত হচ্ছে আধুনিকমানের মারকাজ মসজিদ ২০২২ সালের মধ্যে ট্রেন চলবে কক্সবাজারে কক্সবাজারের উন্নয়নে উদ্যোগ নিলো জাতিসংঘ দ্বিতীয় পারমানবিক বিদ্যুৎ প্রকল্প মহেশখালী-কুতুবদিয়ায়! এগিয়ে চলছে স্বপ্নের কর্ণফুলী টানেল নির্মাণ কাজ ১০০ হাজার কোটি টাকার উন্নয়ন কাজ চলছে কক্সবাজারে ২৫ মেগা প্রকল্পে পাল্টে যাচ্ছে কক্সবাজার উন্নয়নে শীর্ষে কক্সবাজার
৯৫

সংক্রমণ রোধে কক্সবাজারে পশুর হাটে প্রশাসনের ১৯টি নির্দেশনা

প্রকাশিত: ২৮ জুলাই ২০২০  

জিলহজ্ব মাসের চাঁদ দেখার আলোকে আগামী ১ আগষ্ট নিজ নিজ পছন্দ মত পশু কোরবানির মধ্য দিয়ে কক্সবাজার সহ সারা দেশে পালিত হবে ঈদুল আজহা।এরই পরিপ্রেক্ষিতে ২৬ জুলাই রবিবার জেলা প্রশাসন অনুমোদিত স্থায়ী অস্থায়ী পশুর হাটের ইজারাদারদের সাথে অনলাইন প্লাটফর্মে একটি সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

কক্সবাজার জেলা প্রশাসক মো: কামাল হোসেনের সভপতিত্বে জুম অনলাইন সভায় ৮টি উপজেলার ইউএনও এবং জেলার বিভিন্ন পশুর হাট ইজারাদারদের প্রতি বেশকিছু নির্দেশনা ও পরামর্শ দিয়েছে জেলা প্রশাসন।

এবারে মহামারি করোনাভাইরাসের কারণে সংক্রমণ রোধে জনস্বাস্থ্য রক্ষায় ক্রেতা ও বিক্রেতাদের ১৯টি নির্দেশনা প্রদান করা হয়। পাশাপাশি সকল ক্রেতা বিক্রেতাকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে কোরবানির পশু ক্রয় বিক্রয়ের জন্য বিনীত অনুরোধ জানান জেলা প্রশাসক মো: কামাল হোসেন।

জেলা প্রশাসন কতৃক জারী করা নির্দেশনাগুলো হলো –

(১) আবশ্যিকভাবে খোলা স্থানে বাজার স্থাপন করতে হবে, কোন আবদ্ধ স্থানে বাজার করা যাবে না। চতুর্দিকে ফেন্সিং করতে হবে।

(২) ঢোকার পথ ও বাহিরের পথ পৃথক করতে হবে।

(৩) মাস্ক ছাড়া কোন বিক্রেতা পশু বিক্রয় করতে বাজারে প্রবেশ করতে পারবে না।

৪) মাস্ক ছাড়া কোন ক্রেতা বাজারে প্রবেশ করতে পারবে না।

(৫) প্রবেশপথে মাইক থাকবে। স্বাস্থ্যবিধির মেনে চলার নির্দেশনা ক্রমাগত বলার ব্যবস্থা করতে হবে।

(৬) প্রবেশ পথে হাত ধোয়ার বেসিন, সাবান ইত্যাদি রাখতে হবে।

(৭) পর্যাপ্ত পানি ও ব্লিচিং পাউডার ব্যবহার করে বর্জ্য পরিষ্কারের ব্যবস্থা করতে হবে। জলাবদ্ধতা যেন তৈরি না হয় সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে।

(৮) স্বাস্থ্যবিধি সংক্রান্ত পর্যাপ্ত ব্যানার, পোস্টার লাগাতে হবে।

(৯) সকল পশু একসাথে হাটে না ঢুকিয়ে ধারণক্ষমতা অনুযায়ী পশুর হাটে রাখতে হবে।

(১০) সর্দি,কাশি, জ্বর, শ্বাসকষ্ট নিয়ে কেউ হাটে প্রবেশ করতে পারবে না।

(১১) শিশু, বৃদ্ধ, অসুস্থ ব্যক্তি হাটে প্রবেশ করতে পারবে না।

(১২) হাটে প্রবেশ, বের হওয়া ও মূল্য প্রদানের সময় আবশ্যিকভাবে সারিবদ্ধভাবে কমপক্ষে ৩ ফুট দূরত্ব রেখে চলাচল করতে হবে।

(১৩) হাসিলের কাউন্টার একাধিক করতে হবে।

(১৪) হাটে স্বেচ্ছাসেবী মেডিকেল টিম রাখতে হবে।

(১৫) এক পশু হতে অন্য পশুর দূরত্ব এমনভাবে রাখতে হবে যেন ক্রেতারা সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে পশু ক্রয় করতে পারে।

(১৬) একটি পশু ক্রয়ের জন্য দুইজনের বেশি ঢুকতে পারবে না।

(১৭) বাশ দিয়ে পশুর বিক্রেতা হতে ক্রেতার তিন ফুট দূরত্বে দাড়ানো নিশ্চিত করতে হবে।

(১৮) হাটবাজারগুলোতে স্বাস্থ্যবিধি মানা নিশ্চিতকরণে সিপিপি ভলান্টিয়ারদের নিয়োজিত করতে হবে।

(১৯) চুরি, ছিনতাই সহ আইন-শৃঙ্খলার অবনতি রোধে পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।

কক্সবাজার বার্তা
কক্সবাজার বার্তা
এই বিভাগের আরো খবর